আগামী অর্থবছরে মাথাপিছু আয় বেড়ে ৩৭৭৯ ডলারে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্টঃ আগামী অর্থবছরে দেশে জিডিপির আকার হবে ৫০০ বিলিয়ন, আর সে হিসাবে দেশের মাথাপিছু আয় বেড়ে ৩ হাজার ৭৭৯ ডলারে দাঁড়াবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

রবিবার অনলাইন প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে জিডিপিতে প্রবৃদ্ধি হবে সাত দশমিক ২ শতাংশ যা জিডিপির টাকার অংকে ৪৫৫ বিলিয়ন ডলার। এ কারণে মাথাপিছু আয় হবে ২ হাজার ৭৮৫ ডলার। আইএমএফ সম্প্রতি যে পূবার্ভাস দিয়েছে, তাতে তারা সবসময়ই রক্ষণশীল কিন্তু সরকার জানে যে অর্থনীতি ভালো। দেশের উন্নয়ন হলেই জিডিপি বাড়বে। কেবল রাস্তাঘাট জিডিপিতে আসে না, এখানে মানুষের জীবন যাত্রার আয়ব্যয় গণ্য হয়।

আমাদের প্রবাসী আয়ও বাড়ছে তাহলে গবেষণা সংস্থাগুলো যে বলছে করোনাকালে দেশের মানুষ ভালো নাই, সেটা কিভাবে সম্ভব?, এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন ধনী-গরীবদের মধ্যে ব্যবধান কমাতে সরকার কাজ করছে এবং করবে। আমরা কর আহরণে ধনীদের প্রাধান্য দিয়ে সামাজিক সুরক্ষা খাতের বলয়কে প্রাধান্য দিচ্ছি। এ কারণে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়ে দেশ হবে বৈষম্যহীন।

বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ দিয়ে সম্প্রতি সরকারের আনুষ্ঠানিকভাবে জারি করা বিধিমালা নিয়েও কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ না দিলে হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে অর্থ চলে যাবে। তিনি বলেন, ‘আমরা যদি বন্ধ করে রাখি, তাহলে পিছিয়ে থাকব। অনেকেই সৃজনশীল ধারণা নিয়ে বিদেশে বিনিয়োগের চেষ্টা করছেন। এটা অন্যায় কিছু নয়। যদি অনুমতি না দেওয়া হয়, তাহলে এটা চলে যাবে হুন্ডির মাধ্যমে বিভিন্ন দেশে। তার চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন দেওয়াই ভালো।’