প্রশংসায় ভাসছেন জয়া

ডেস্ক রিপোর্ট : দুই বাংলার নন্দিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। সম্প্রতি বাংলাদেশের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর কলকাতায় মুক্তি পেয়েছে অতনু ঘোষ পরিচালিত সিনেমা ‘বিনিসুতোয়’। মহামারি আতঙ্ক সত্ত্বেও দর্শকদের কাছ থেকে সিনেমাটি ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। সিনেমাটিতে জয়া আহসানের অভিনয় ও গায়কী কলকাতার দর্শক প্রশংসা করছে।

বিশেষ করে ‘সুখের মাঝে তোমায় দেখেছি’ অভিনেত্রী জয়া আহসানের গলায় রবীন্দ্র সংগীত শুনে মুগ্ধ শ্রোতারা। গানের অভিব্যক্তিতে মুগ্ধ সংগীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্রও। তার ভাষায়, ‘তিনি রবীন্দ্র সঙ্গীতের শিল্পী নন, তবুও তিনি এটি অসাধারণভাবে করেছেন, বিশেষ করে অভিনেত্রী হয়ে তিনি যেভাবে গানটি গেয়েছেন।

‘বিনিসুতোয়’ আমরা যে রবীন্দ্র সঙ্গীত ব্যবহার করেছি তা অন্য কোনো কণ্ঠে মানাবে না। সিনেমাটি দেখার সময়, আমি আসলে বুঝতে পারি যে সে গানটি কতটা আবেগের সাথে উপস্থাপন করেছে।

এটি ঠাকুরের গানে অনেকগুলি সাধারণ পদ্ধতির বাইরে এবং আমাকে পুরানো দিনের শিল্পীদের স্মরণ করিয়ে দেয়। তার (জয়া আহসান) কণ্ঠে আরো গান করা দরকার।’ জয়া আহসান বলেন, ‘এই গানটি আমার অজানা ছিল। আমি গানের মতো করে অর্থাৎ স্বরলিপি মিলিয়ে গানটি গাইনি।

গানের কথাগুলো অনুভব করে নিজের মতো করে গেয়েছি। দেবজ্যোতি মিশ্র গানটি গাইয়ে নিয়েছেন। খুবই ভালো লাগছে অভিনয়ের পাশাপাশি গানটিও দর্শকদের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে।’

‘বিনিসুতোয়’ জয়ার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। সিনেমাটি মাত্র একটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেলেও বেশ প্রশংসা কুড়াচ্ছে। করোনা মহামারির এই সময় প্রেক্ষাগৃহ ছিল হাউজফুল। কাজল ও শ্রাবণীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ঋত্বিক ও জয়া।

এতে আরো অভিনয় করেছেন কৌশিক সেন, চন্দ্রায়ি ঘোষ, খেয়া চট্টোপাধ্যায় এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। জয়া আহসান যাত্রাটা শুরু করেছিলেন মডেল হিসেবে, নব্বই দশকের শেষদিকে।

সেখানে বাজিমাত করে নাম লেখান নাটক-টেলিছবির অভিনয়ে। এরপর আসেন সিনেমায়। পরের গল্পটা কেবলই সাফল্যের। একের এক পর চমক দেখিয়ে চলেছেন বৈচিত্রময় চরিত্রে। ঢাকার পাশাপাশি তার অভিনয়ের মায়ায় বাঁধা পড়েছে কলকাতার সিনেমার দর্শকও।